الانشاء : الصلوة / أو أهميَّةُ الصَّلوةِ فِي الْمُجْتَمَعِ الْإِسْلَامِي | রচনা : সালাত / ইসলামে জামাতে সালাত আদায়ের গুরুত্ব | Alim Arabic 2nd Paper - আলিম আরবি দ্বিতীয় পত্র | Class Alim (الصف العالم)

(toc)

 الصلوة أو أهميَّةُ الصَّلوةِ فِي الْمُجْتَمَعِ الْإِسْلَامِي 

 الْمُقَدِّمَةُ :

 الْحَمْدُ لِلّهِ الَّذِي خَلَقَنَا وَجَعَلَنَا مُسْلِمَيْنِ وَفَرَضَ عَلَيْنَا الصَّلوةَ عِبَادَةً وَالصَّلوةُ وَالسَّلَامُ عَلَى النَّبِيِّ ﷺ الَّذِي جَاءَ بِالصَّلوة مِنَ اللَّهِ سُبْحَانَهُ وَتَعَالَى وَعَلَى آلِهِ وَأَصْحَابِهِ أَجْمَعِينَ -

 تَعْرِيفُ الصَّلوةِ :

 الصَّلوةُ مَصْدَرُ مِنْ بَابِ التَّفْعِيل مَعْنَاهُ فِى اللُّغَةِ الدُّعَاءُ وَالاسْتِغْفَارُ وَالرَّحْمَةُ وَالتَّسْبِيحُ -

وَفِي الْإِصْطِلاح :

 هِى عِبَادَةً مَخْصُوصَةَ تُؤَدَى بِأَفْعَالِ مَخْصُوصَةٍ وَأَرْكَانِ مَعْلُوْمَةٍ مَعَ شَرَائِطٍ مُعَيَّنَةٍ فِي وَقْتٍ مَعْلُومٍ -

 أهميَّةُ الصَّلوة :

١- الصَّلوةُ مِنْ فَرَائِضِ الْإِسْلَامِ : إِنَّ الصَّلوةَ عِبَادَةُ مَعْرُوفَةٌ مِنْ فَرَائِضِ الْإِسْلَامِ أَمَرَ اللهُ تَعَالَى كُلُّ مُسْلِمٍ بِإِقَامَةِ الصَّلوةِ. وَإِنَّهُ تَعَالَى قَالَ : اقِيمُوا الصَّلوةَ وَأتُوا الزَّكَوةَ وَارْكَعُوا مَعَ الرَّاكِعِينَ -

٢- الصَّلوةُ مِنْ أَفْضَلِ الْعِبَادَاتِ : الصَّلوةُ أَفْضَلُ الْعِبَادَاتِ مِنْ عِبَادَةِ اللهِ عَزَّ وَجَلَّ إِنَّ اللهَ تَبَارَكَ وَتَعَالَى قَالَ : قَدْ أَفْلَحَ الْمُؤْمِنُونَ الَّذِينَ هم فى صَلَاتِهِمْ خَاشِعُونَ" -

٣- الصلوةُ عِمَادُ الدِّينِ : اَلصَّلوةُ عِمَادُ الدِّينِ وَرُكْنَ مِنْ أَرْكَانِ الْإِسْلَامِ. قَالَ رَسُولُ اللهِ ﷺ : "بُنِيَ الْإِسْلَامُ عَلى خَمْسٍ : شَهَادَةِ أَنْ لَا إِلَهَ إِلَّا الله ان مُحَمَّدًا رَسُولُ اللهِ وَإِقَامِ الصَّلوةِ وَإِيتَاءِ الزَّكَوةِ وَصَومِ رمَضَانَ وَالْحَجِّ وَفِي حَدِيثٍ أَخَرَ : الصَّلَوةُ عِمَادالَّذِيْنِ -

 أهَمِّيَّةُ الصَّلوةِ فِي ضَوْءِ الْقُرْآنِ وَالْحَدِيْثِ : 

إِنَّ اللَّهَ تَعَالَى أَكَدَ الصَّلوةَ فِي الْقُرْآنِ الْكَرِيمِ فِى أَكْثَرَ مِنْ ثَمَانِينَ مَوْضُعًا وَاهْتَمَّ بِهَا عَلَى سَائِرِ الْعِبَادَاتِ وَالْأَعْمَالِ لِلْمُؤْمِنِينَ كَمَا قَالَ تَعَالَى : "وَإِنَّهَا لَكَبِيرَةُ إِلَّا عَلَى الْخَاشِعِينَ. وَقَالَ أَيْضًا : وَأَمُرَ أَهْلَكَ بِالصَّلوةِ وَاصْطَبِرْ عَلَيْهَا.  وَقَالَ رَسُولُ اللهِ ﷺ: أَوَّلُ مَا يُحَاسَبُ بِهِ الْعَبْدُ يَوْمَ الْقِيَامَة الصَّلوة. وَقَالَ أَيْضًا : " صَلُّوا كَمَا رَأَيْتُمُونِي أَصْلِيُّ". وَأَيْضًا قَالَ النَّبِيُّ ﷺ: بَيْنَ الْإِيْمَانِ وَالْكُفْرِ تَرْكُ الصَّلوةِ، وَقَالَ فِي  حَدِيثٍ أَخَرَ : مَنْ تَرَكَ الصَّلوةَ مُتَعَمِّدًا فَقَدْ كَفَرَ  -

 فَضِيلَةُ الصَّلوة :

 لِلصَّلوةِ فَضَائِلُ كَثِيرَةٌ وَهِيَ تَنْهى النَّاسَ عَنِ السَّيِّئَاتِ وَالْفَوَاحِشِ وَالْمُنْكَرَاتِ كَمَا قَالَ اللهُ سُبْحَانَهُ وَتَعَالَى : "إِنَّ الصَّلوةَ تَنْهَى عَنِ الْفَحْشَاءِ وَالْمُنْكَرِ وَتُزَكَّى النَّفْسَ عَنِ الْكُفْرِ وَالسَّيِّئَاتِ وَالْفَوَاحِشِ وَالْمُنْكَرِ وَهِيَ مِنْ اَهْمَ صِفَاتِ الْمُؤْمِنِينَ، حَيْثُ قَالَ تَعَالَى : "هُدًى لِلْمُتَّقِيْنَ الَّذِينَ يُؤْمِنُونَ بِالْغَيْبِ وَيُقِيمُونَ الصَّلوةَ وَهِيَ تَقْوَى الْعَلَاقَةَ بَيْنَ اللهِ وَبَيْنَ الْعَبْدِ. وَهِيَ سَبَبُ الْاِتِّحَادِ وَالْاِتِّفَاقِ بَيْنَ الْمُسْلِمِينَ. وَهِي تُنْشِئُ الْمُحَبَّةَ وَالْمُوَدَّةَ بَيْنَ النَّاسِ وتُبْعِدُ الْحَسَدَ وَالْبَغْضَ -

 الْحَاصِلُ :

 عَلَيْنَا اَنْ نُؤَدِى الصَّلوةَ وَنُقِيمَهَا فَرْدًا وَمُجْتَمَعًا. لأَنَّ الصَّلوةَ وَسِيْلَةُ النَّجَاةِ عَنْ عَذَابِ جَهَنَّمَ وَلدُخُولِ الْجَنَّةِ -

সালাত

উপস্থাপনা :

সকল প্রশংসা আল্লাহর জন্য, যিনি আমাদেরকে সৃষ্টি করেছেন, মুসলিম বানিয়েছেন এবং আমাদের জন্য ইবাদত হিসেবে সালাত ফরয করেছেন। আর দরূদ ও সালাম বর্ষিত হোক নবী কারীম (স)-এর ওপর, যিনি আল্লাহর পক্ষ থেকে আমাদের জন্য সালাত নিয়ে এসেছেন এবং তাঁর পরিবার ও সকল সাহাবীর ওপর।

صَّلوةُ - এর পরিচয়

صَّلوةُ শব্দটি বাবে تَّفْعِيل এর মাসদার। এর আভিধানিক অর্থ- দোয়া, ইসতিগফার, রহমত তাসবীহ। পরিভাষায়- এটি একটি নির্দিষ্ট ইবাদত, যা নির্দিষ্ট কাজ গুরুত্বপূর্ণ শর্তাবলির সাথে নির্দিষ্ট শর্তে নির্দিষ্ট সময়ে আদায় করা হয়।

সালাতের গুরুত্ব

১. সালাত ইসলামের একটি ফরয : সালাত ইসলামের ফরযসমূহের মাঝে একটি প্রসিদ্ধ ইবাদত। আল্লাহ তায়ালা প্রত্যেক মুসলিমকে সালাত কায়েমের নির্দেশ দিয়েছেন। আল্লাহ তায়ালা ইরশাদ করেন, “তোমরা সালাত কায়েম কর, যাকাত দাও এবং রুকুকারীদের সাথে রুকু কর”।
২. সালাত সর্বোত্তম ইবাদত : সালাত আল্লাহর ইবাদতসমূহের মাঝে সর্বোত্তম ইবাদত। আল্লাহ তায়ালা ইরশাদ করেন, “যে সকল মুমিন তাদের সালাতে বিনত, তারা সফল হয়েছেন”।
৩. সালাত দ্বীনের খুঁটি : সালাত দ্বীনের খুঁটি ও ইসলামের একটি স্তম্ভ। রাসূলুল্লাহ (স) ইরশাদ করেন, “ইসলামের ভিত্তি পাঁচটি। এ সাক্ষ্য দেওয়া যে, আল্লাহ ব্যতীত কোনো ইলাহ নেই এবং মুহাম্মদ (স) আল্লাহর রাসূল, সালাত কায়েম করা, যাকাত আদায় করা, রমযানের রোজা রাখা ও হজ্জ করা"। অন্য হাদীসে রয়েছে “সালাত দ্বীনের খুঁটি"

কুরআন ও হাদীসের আলোকে সালাতের গুরুত্ব :

আল্লাহ তায়ালা কুরআনুল কারীমের আশিটিরও অধিক স্থানে সালাতের কথা দৃঢ়তার সাথে উল্লেখ করেছেন এবং মুমিনদের সকল আমল ও ইবাদতের চেয়ে এটার প্রতি অধিক গুরুত্বারোপ করেছেন। আল্লাহ তায়ালা বলেন, "এটা অবশ্যই বিনীতগণ ব্যতীত সকলের নিকট কঠিন"। আল্লাহ তায়ালা আরও বলেন, “আর আপনি আপনার পরিবারকে সালাতের নির্দেশ দিন আর আপনিও তার ওপর অবিচল থাকুন"।
রাসূল (স) ইরশাদ করেন, "কেয়ামতের দিন সর্বপ্রথম সালাতের হিসাব নেওয়া হবে"। তিনি আরও বলেন, “তোমরা আমার সালাতের ন্যায় সালাত আদায় কর"। মহানবী (স) আরও বলেন, “ঈমান ও কুফরের মাঝে পার্থক্যসৃষ্টিকারী বিষয় হলো সালাত ত্যাগ করা"। তিনি অন্য আরেক হাদীসে বলেন, “যে ব্যক্তি স্বেচ্ছায় সালাত ত্যাগ করল সে কুফরী করল"।

সালাতের ফযিলত:

সালাতের অনেক ফযিলত রয়েছে। এটি মানুষকে মন্দ, অশ্লীল ও ঘৃণ্য কাজ থেকে বিরত রাখে। আল্লাহ তায়ালা বলেন, “নিশ্চয় সালাত অশ্লীল ও মন্দ কাজ থেকে বিরত রাখে"। এটি আত্মাকে কৃষ্ণরী, মদ, অশ্লীলতা ও ঘৃণ্য কাজ হতে পরিশুদ্ধ করে। এটি মুমিনগণের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ গুণ। আল্লাহ তায়ালা বলেন, "এটা মুত্তাকীদের জন্য পথপ্রদর্শক, যারা অদৃশ্যের প্রতি ঈমান আনে ও সালাত কায়েম করে। এটি আল্লাহ ও বান্দার মাঝে সম্পর্ককে সুদৃঢ় করে। এটি মুসলমানদের ঐক্য ও একতার মাধ্যম। এটি মানুষের মাঝে পরস্পর ভালোবাসা ও হৃদ্যতা সৃষ্টি করে এবং হিংসা ও বিদ্বেষ দূর করে।

উপসংহার:

আমাদের দায়িত্ব হলো ব্যক্তিগত ও সমষ্টিগতভাবে সালাত আদায় করা। কেননা সালাত জাহান্নাম থেকে মুক্তি ও জান্নাতে প্রবেশের মাধ্যম।


#buttons=(Accept !) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !